স্থানীয় আ.লীগ নেতা সহ ৫ including০ জনেরও বেশি লোকের বিরুদ্ধে মামলা করা হয়েছে

0
15



নগরীর চরমাথা বাস টার্মিনাল এলাকায় বগুড়া আ’লীগের দুই প্রতিদ্বন্দ্বী দল ও যুবলীগের মধ্যে গতকাল সংঘর্ষের ঘটনায় দায়ের করা তিন মামলায় আওয়ামী লীগের বগুড়া জেলা শাখার যুগ্ম সম্পাদক মনজুরুল আলম মোহন সহ ৫60০ জনের বিরুদ্ধে মামলা করা হয়েছে।

বগুড়া জেলা মোটর মালিক গ্রুপের ঘোষণাপত্র অনুসারে আজ সকাল :00 টা থেকে আট ঘণ্টার জন্য সংলগ্ন জেলার সাথে যোগাযোগ ব্যবস্থা বন্ধ ছিল।

পুলিশের সাথে আলোচনার পরে পরিবহন নেতারা ধর্মঘট প্রত্যাহার করেছিলেন বলে বগুড়ার পুলিশ সুপার আলী আশরাফ ভূঁইয়া জানিয়েছেন।

সংঘর্ষে একটি প্লেনক্লথস পুলিশ এবং একটি টিভি ক্যামেরাপারসন সহ ১০ জন আহত হওয়ার কয়েক ঘন্টা পরে গত রাতে বগুড়া সদর থানায় এই তিনটি মামলা দায়ের করা হয়েছিল।

সংঘর্ষের সময় বগুড়া পুলিশের বিশেষ শাখায় কনস্টেবল রমজান আলীকে (৫৫) হামলার অভিযোগে যুবলীগ নেতা জাকারিয়া আদিল এবং আড়াইশজন নামহীন ব্যক্তিসহ ছয়জন নামধারী ব্যক্তির বিরুদ্ধে পুলিশ পরিদর্শক মোঃ নান্নু খান একটি মামলা দায়ের করেছেন।

বগুড়া সদর থানার পরিদর্শক (তদন্ত) আবুল কামাল আজাদ জানান, বগুড়া সদর উপজেলা জোবো লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি আমিনুল ইসলাম তার অফিসে হামলা ও ভাঙচুরের অভিযোগে মোহন ও ২০০/২৫০ জন অজ্ঞাতপরিচয় ব্যক্তির নামে আরও একটি মামলা দায়ের করেছেন।

মোহনুলের ভাই মোশিউল আলম তৃতীয় মামলাটি করেছেন আমিনুল এবং ৩২ জনের নাম এবং আরও ২০/২৫ জন অজ্ঞাতপরিচয় লোকের বিরুদ্ধে মোহন ও তার লোকদের উপর হামলা করার জন্য।

এদিকে, সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) হুমায়ুন কবির জানান, পুলিশ কনস্টেবলের উপর হামলার অভিযোগে দায়ের করা মামলায় পুলিশ দু’জনকে গ্রেপ্তার করেছে এবং 12 জনকে আটক করেছে।

সংঘর্ষের পরপরই মোটর মালিকদের গ্রুপ হুমকি দিয়েছিল, মোহনকে গ্রেপ্তার না করা হলে বগুড়ায় পরিবহন ধর্মঘট শুরু করবে।



LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here