শিশুকে কঠোর কারাদন্ডে দণ্ডিত করার জন্য যশোর বিচারকের কর্তৃত্বকে প্রশ্নবিদ্ধ করেছে হাইকোর্ট

0
13



বিস্ফোরক পদার্থ আইনে দায়ের করা মামলায় একটি শিশুকে কঠোর কারাদন্ডে দণ্ডিত করায় আজ উচ্চ আদালত যশোরে শিশু আদালতের বিচারক মাহমুদা খাতুনের কর্তৃত্বকে প্রশ্নবিদ্ধ করেছে।

আদালত বিচারক মাহমুদাকে একমাসের মধ্যে লিখিতভাবে কারণ দর্শানোর জন্য বলেছিলেন যে আদালত তার আদালত বিস্ফোরক পদার্থ আইনের দুটি ধারায় শিশুটিকে তিন বছর এবং দুই বছর (একযোগে) সশ্রম কারাদন্ডে দায়ের করেছিলেন যদিও শিশুদের আদালতের কোনও বিধান নেই। একটি শিশুকে কঠোর কারাদন্ডে দন্ডিত করা

বিচারপতি এম এনায়েতুর রহিম ও বিচারপতি মোঃ মোস্তাফিজুর রহমানের এইচ সি বেঞ্চ শিশু আদালতের রায়কে চ্যালেঞ্জ জানিয়ে কারা কর্তৃপক্ষের মাধ্যমে দণ্ডিত শিশুটির করা একটি জেল আপিল শুনানি চলাকালীন এই আদেশের সাথে উপস্থিত হয়।

ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল সরোয়ার হোসেন বাপ্পি ডেইলি স্টারকে বলেছেন, বেঞ্চ এই মামলায় শিশুটির কারাগারের আপিল শুনানির জন্য স্বীকৃত এবং জামিন মঞ্জুর করেছে।

তিনি বলেছিলেন যে শিশুদের আদালত কোনও মামলায় শিশুকে সাধারণ কারাদণ্ডে দণ্ডিত করতে পারে, তবে শিশু আইন, ২০১৩-এর আওতায় কঠোর কারাদণ্ডে সাজা দিতে পারে না।

কারাগারের আপিলের সাথে যুক্ত তথ্য ও নথিপত্র যাচাইয়ের পর এইচসি বেঞ্চ বিচারক মাহমুদা খাতুনকে এই কারণ দর্শানোর দাবি জানান, ডেইজি জানিয়েছে।

ডিএজি সরোয়ার অবশ্য যে ঘটনার জন্য শিশুটির বিরুদ্ধে বিস্ফোরক পদার্থ আইন, ১৮৯৮ এর অধীনে মামলা দায়ের করা হয়েছে সে সম্পর্কে বিস্তারিত জানাতে পারেননি।



LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here