বাঁশখালীতে 34 জন ডাকাত আত্মসমর্পণ করেছেন

0
18



উপকূলীয় অর্থনীতির উপর নির্ভর করে জীবিকা নির্বাহের সাথে মহেশখালীর উপকূলীয় অঞ্চলে প্রায় ৩০ থেকে ৩৫ লক্ষ লোক বাস করেন। তবে ওই অঞ্চলে ডাকাতদের কারণে তারা দীর্ঘদিন ধরে জিম্মি ছিল। ডাকাতদের আত্মসমর্পণের মাধ্যমে এখন উপকূলীয় অঞ্চলে আবারও শান্তির বাতাস বইতে পারে এমন সম্ভাবনা রয়েছে।

আজ বাঁশখালীর আত্মসমর্পণ অনুষ্ঠানে ফোর্সের পক্ষ থেকে গণমাধ্যমকে একথা বলেন, র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়নের (রব) আইনী ও মিডিয়া শাখার পরিচালক লেঃ কর্নেল আশিক বিল্লাহ।

আশিক বিল্লাহ আরও বলেছিলেন, “১১ টি গ্যাংয়ের প্রায় ৩৪ জন ডাকাত আত্মসমর্পণ করছে। যাদের আগে আত্মসমর্পণের সুযোগ ছিল না তারা এখন সুযোগ পাচ্ছে। এই আত্মসমর্পণের মাধ্যমে এই উপকূলীয় অঞ্চল ডাকাতমুক্ত থাকবে।”

র‌্যাব কর্মকর্তা জানান, আত্মসমর্পণকারী বেশিরভাগ ডাকাতদের বিরুদ্ধে মামলা রয়েছে। আইনী প্রক্রিয়ার মাধ্যমে হত্যা ও ধর্ষণ মামলা ব্যতীত অন্যান্য মামলা প্রত্যাহার করা হবে।

“তদুপরি, যারা গ্যাং তৈরির পিছনে মাস্টারমাইন্ডস হিসাবে কাজ করেছে তাদের কাছ থেকে পর্যবেক্ষণ করা হবে। খুব অল্প সময়েই তাদের আইনের আওতায় আনা হবে,” তিনি বলেছিলেন।

রব জানান, ২০০৪ সাল থেকে বাহিনী চট্টগ্রাম ও কক্সবাজারের বিভিন্ন এলাকায় অভিযান চালিয়ে 246 ডাকাতকে গ্রেপ্তার করেছে, পাশাপাশি আগ্নেয়াস্ত্র ও গোলাবারুদ উদ্ধার করেছে।



LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here