জামায়াত-শিবিরের লোকদের দ্বারা হাটহাজারী মাদ্রাসায় হামলা চালিয়ে শফির মৃত্যু হয়েছিল: পরিবারের সদস্যরা দাবি করেছেন

0
12



হাটহাজারী মাদ্রাসায় ১ September সেপ্টেম্বর জামায়াত-শিবিরের লোকেরা আক্রমণ করেছিল, যার ফলে হেফাজতের প্রাক্তন প্রধান শাহ আহমদ শফির মৃত্যু হয়েছিল, তার শ্যালক মোঃ মoinন উদ্দিন দাবি করেছেন।

জামায়াত-শিবিরের কর্মীরা জামায়াতে ইসলামের বিরুদ্ধে তাঁর (শফী) অবস্থানের জন্য এই হামলা চালিয়েছিল বলে ম Chatন উদ্দিন চ্যাটগ্রাম প্রেস ক্লাবে (সিপিসি) এক সংবাদ সম্মেলনে জানিয়েছেন।

সংবাদ সম্মেলনে বক্তব্য রেখে ম Mন উদ্দিন আহমদ শফির মৃত্যুর তদন্তের জন্য প্রধানমন্ত্রীকে বিচার বিভাগীয় তদন্ত কমিটি গঠনের আহ্বান জানান।

হেফাজতে ইসলামের ব্যানারে – সংবাদ সম্মেলনে শফির অনুসারীরা ১৫ নভেম্বর হাটহাজারী মাদ্রাসায় অনুষ্ঠিত হেফাজতে ইসলামের প্রতিনিধি সম্মেলন বাতিল করার দাবি জানান।

এই কাউন্সিলকে হেফাজতের একটি গোষ্ঠী বিএনপি-জামায়াতের হাতে কাব্যবিরোধী কাওমী সংগঠন হস্তান্তর করার ব্যবস্থা করেছে বলে তারা অভিযোগ করেছে।

লিখিত বিবৃতিতে মoinন উদ্দিন দাবি করেছেন যে ১ 16 সেপ্টেম্বর জামায়াত-শিবির ক্যাডারদের সহায়তায় মাদ্রাসার কয়েকজন শিক্ষার্থী হাটহাজারী মাদ্রাসা অবরোধ করেছিলেন।

তিনি বলেছিলেন যে জুনায়েদ বাবুনগরী সেদিন মাদ্রাসায় সহিংসতার নেতৃত্ব দিয়েছিল এবং মীর ইদ্রিস, নাসির উদ্দিন মুনির, মুফতি হারুন ইজহার ও এনামুল হাসানসহ কয়েকজনের সহায়তায় তার তহবিল লুট করে।

হামলাকারীরা জোর করে শফির কক্ষে প্রবেশ করে তাণ্ডব ও লুটপাট চালিয়ে যায় বলে ম ,ন জানান।

তারা শফিকে লাঞ্ছিত ও হুমকি দিয়েছে বলেও দাবি করেন তিনি। তারা শফিকে আল জামেয়াতুল আহলিয়া দারুল উলুম মoinনুল ইসলাম মাদ্রাসার মহাপরিচালকের পদ থেকে পদত্যাগ করার দাবি জানান, তিনি যোগ করেন।

শফী তিন দশকেরও বেশি সময় ধরে হাটহাজারী মাদ্রাসা নামে পরিচিত মাদ্রাসায় এই পদে অধিষ্ঠিত ছিলেন।

এই সহিংসতার সময় তিনি খুব অসুস্থ হয়ে পড়েছিলেন, মoinন আরও বলেন, দুর্বৃত্তরা শফির অক্সিজেন সরবরাহকে বেশ কয়েকবার ছুঁড়ে ফেলেছিল – ফলে তাকে কোমায় যেতে হয়েছিল।

শফিকে যখন মাদ্রাসা থেকে বের করে আনা হয়েছিল এবং তাকে ছাতোগ্রামের হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হচ্ছে তখন তাকে বহনকারী অ্যাম্বুলেন্সটিও বন্ধ করে দেওয়া হয়েছিল যার ফলে তার মৃত্যু দ্রুত হয়।

মoinন উদ্দিন বলেন, “দেশের মুক্তিযুদ্ধের পক্ষে” তার অবস্থানের জন্য আহমদ শফিকে বেশ কয়েকবার আক্রমণ করা হয়েছিল। তিনি বলেছিলেন যে শফির বিরুদ্ধে জামায়াত-শিবিরের লোকদের মধ্যে ক্ষোভ রয়েছে, তিনি “স্বাধীনতাবিরোধী শক্তি জামায়াতে ইসলামের বিরুদ্ধে বই লিখেছিলেন,” তিনি বলেছিলেন।



LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here