গুজব নিয়ে উত্তরায় পুলিশদের সাথে স্থানীয়দের সংঘর্ষ

0
11



Ightাকার উত্তরার সেক্টর -৪ এ আজ রাত্রে প্রায় দুই শতাধিক স্থানীয় পুলিশের সাথে সংঘর্ষ হয়, এমন গুজব ছড়িয়ে পড়ে যে, ওই বাড়িতে তার গৃহকর্মী তাকে হত্যা করেছে।

পুলিশ ও প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়েছে, তারা একটি বাড়ি ভাঙচুর করে এবং সন্ধ্যার পর রাত দশটা অবধি পর্যায়ক্রমে পুলিশের সাথে পাল্টা ধাওয়া ও পাল্টা ধাওয়া করে। তবে কেউ আহত হওয়ার খবর পাওয়া যায়নি।

পুলিশ জানিয়েছে, রাত সাড়ে। টার দিকে প্রায় দুই শতাধিক লোক রোডের একটি বাড়ির সামনে জড়ো হয়েছিল এবং এক গৃহবধূকে তার মালিকরা হত্যা করে এমন গুজবের পরে বিক্ষোভ প্রদর্শন শুরু করে, পুলিশ জানিয়েছে।

পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে চাইলে আন্দোলনরত স্থানীয়রা সংঘর্ষের সূত্রপাত করে আইনজীবিদের দিকে ইটের ব্যাট ছুড়ে মারে।

স্থানীয়রা বিক্ষিপ্ত সংঘর্ষ চলাকালীন রাত দশটা অবধি চলমান বিল্ডিংয়ের ভেঙে ফেলা এবং জানালাগুলিও ভাঙচুর করে।

কামুরুজ্জামান কিছুদিনের জন্য কোভিড -১৯ এর লক্ষণ দেখাতে শুরু করার পর তার মালিক তাকে কারাবন্দী রাখার কারণে বাড়ির চতুর্থ তলায় বারান্দা থেকে একটি পরিবারের গৃহবধূ চিৎকার করে বাড়ির চতুর্থ তলায় তাকে বাড়ির বাইরে যাওয়ার জন্য অনুরোধ করেছিলেন। পরিবারের সদস্য ও স্থানীয়দের বরাত দিয়ে Dhakaাকা মহানগর পুলিশের সহকারী জেলা প্রশাসক (উত্তরা জোন) সরদার জানিয়েছেন।

এই ঘটনার কয়েক ঘন্টা পরে একটি গুজব ছড়িয়ে পড়ে যে প্রায় বারো বছর বয়সী গৃহবধূ তার চাকরিজীবীদের হাতে মারা গিয়েছিল কারণ বারান্দায় তার উপস্থিতি দেখা না যাওয়ার পরে দেখা যায়নি।

গৃহকর্মী নিযুক্ত পরিবারের সদস্যদের বরাত দিয়ে এডিসি বলেন, মহিলার নিয়োগকর্তা সম্প্রতি চাঁপাইনবাবগঞ্জের গ্রাম থেকে তাঁর বাসায় আসার পরে তাকে কোভিড -১৯ এর সাথে বিচ্ছিন্ন রেখেছিলেন।

পুলিশ জানিয়েছে, মহিলাকে মালিকের শাশুড়ির বাড়িতে পাঠানো হয়েছে।

এডিসি কামরুজ্জামান সরদার আরও বলেছিলেন, ভাঙচুর ও পুলিশকে বাধা দেওয়ার অভিযোগে পুলিশ বেশ কয়েকজনকে আটক করেছে।



LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here