ওআইসির সিএফএম ইসলামফোবিয়াকে মোকাবেলায় মুসলিম unityক্যের উপর জোর দেওয়া শুরু করে

0
93



Islamic 57 সদস্যের সংগঠন ইসলামিক সহযোগিতার (ওআইসির) পররাষ্ট্রমন্ত্রীর কাউন্সিলের (সিএফএম) বৈঠকের দু’দিনের 47 তম অধিবেশন আজ নাইমে, শান্তি ও উন্নয়নের জন্য ইসলামফোবিয়াকে সম্বোধন করার ক্ষেত্রে মুসলিম বিশ্বের unityক্যের উপর জোর দিয়ে শুরু হয়েছে।

নাইজারের রাষ্ট্রপতি মহামাদৌ ইসুইফু ওআইসির বিদেশমন্ত্রীদের বৈঠকের উদ্বোধন করেন এবং ওআইসির মহাসচিব ড। ইউসুফ আল-ওথাইমিন নাইজের রাজধানীতে মহাত্মা গান্ধী আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে আয়োজিত উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন।

দু’দিনের মধ্যে ওআইসির দেশসমূহের পররাষ্ট্রমন্ত্রীরা বিবিধ বিভিন্ন বিষয় নিয়ে আলোচনা করবেন বিশেষত মুসলিম-সংখ্যালঘু এবং অ-সদস্য দেশগুলির সম্প্রদায়ের পরিস্থিতি যার মধ্যে রয়েছে মিয়ানমারের বংশোদ্ভূত রোহিঙ্গা মুসলমানরা, যারা সামরিক ক্র্যাকডাউন করে জোরপূর্বক বাংলাদেশে বাস্তুচ্যুত হয়েছিল। রাখাইন তিন বছর আগে।

উদ্বোধনী অধিবেশন চলাকালীন সংযুক্ত আরব আমিরাতের বিদেশমন্ত্রীর পক্ষে, সংযুক্ত আরব আমিরাতের আন্তর্জাতিক সহযোগিতা প্রতিমন্ত্রী রিম বিনতে ইব্রাহিম সিএমএফের সভাপতিত্ব নাইজেরের পররাষ্ট্রমন্ত্রী ইব্রাহিম ইয়াউউবুকে দিয়েছিলেন।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের পরে ওআইসির সদস্য রাষ্ট্রগুলির প্রতিনিধিদল মুসলিম বিশ্ব সম্পর্কিত বিভিন্ন বহুপাক্ষিক ইস্যুতে তাদের বক্তব্য দেবেন বলে আশা করা হচ্ছে, পররাষ্ট্র মন্ত্রীরা আগামী ওআইসির সেক্রেটারি জেনারেলকে আগামী বা কাল নির্বাচন করবেন বলে আশা করা হচ্ছে।

প্রযুক্তিগত অধিবেশন চলাকালীন ওআইসির পররাষ্ট্রমন্ত্রীরা ফিলিস্তিনের কারণ, সহিংসতা, চরমপন্থার বিরুদ্ধে লড়াই এবং মুসলিম বিশ্ব সম্পর্কিত অন্যান্য ইস্যুসহ আন্তর্জাতিক আদালত (আইসিজে) দায়ের করা রোহিঙ্গা গণহত্যা মামলায় গাম্বিয়াকে কীভাবে সহায়তা করবেন সে বিষয়েও আলোচনা করবেন। সন্ত্রাসবাদ, ইসলামফোবিয়া এবং ধর্মীয় মানহানি

বাংলাদেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রী ডাঃ একে আবদুল মোমেন ব্যক্তিগতভাবে সিএমএফ-এ যোগদানের কথা ছিল, তবে নাইজারে উড়ানোর একদিন আগে Dhakaাকায় কোভিড -১৯ পরীক্ষা চলাকালীন তিনি করোনভাইরাসটির জন্য ইতিবাচক পরীক্ষা করেছিলেন।

তবে বিদেশমন্ত্রীর অনুপস্থিতিতে সৌদি আরবের রাষ্ট্রদূত ডঃ মোহাম্মদ জাভেদ পাটোয়ারী, যিনি ওআইসির বাংলাদেশ স্থায়ী প্রতিনিধিও রয়েছেন, বাংলাদেশ প্রতিনিধি দলের নেতৃত্ব দিচ্ছেন বিদেশ মন্ত্রকের মহাপরিচালক ওয়াহিদা আহমেদও।

রোহিঙ্গা গণহত্যার বিষয়ে আইসিজে মিয়ানমারের বিরুদ্ধে গাম্বিয়ায়ের আইনী লড়াইয়ে সমর্থন দেওয়ার জন্য সিএমএফের প্ল্যাটফর্মটি ব্যবহার করে সিএমএফের প্ল্যাটফর্ম ব্যবহার করে তহবিল সংগ্রহের অভিযান শুরু করতে যাচ্ছে বাংলাদেশ।

রোহিঙ্গা ইস্যু ছাড়াও, বাংলাদেশ প্রতিনিধিরা ধনী-দরিদ্র নির্বিশেষে সকল দেশে সম্ভাব্য সিওভিডির ভ্যাকসিনের সমান বিতরণ এবং পাশাপাশি অভিবাসী শ্রমিকদের অধিকারের বিষয়টি উত্থাপনের পক্ষে এবং অন্যদিকে তেল সমৃদ্ধ মধ্য প্রাচ্যের ওআইসির সদস্য রাষ্ট্রগুলি বিপুল সংখ্যক প্রবাসীকে হোস্ট করবে বাংলাদেশি শ্রমিকরা।

ওআইসির বিদেশমন্ত্রীরা শনিবার ‘নিয়ামে ঘোষণা’ ঘোষণার এবং ঘোষণাপত্র গ্রহণ করবেন এবং ওআইসির সেক্রেটারি জেনারেল এবং সিএফএমের ৪th তম অধিবেশনের সভাপতি দু’দিনের বৈঠকের সমাপ্তির পরে একটি যৌথ সংবাদ সম্মেলন করার কথা রয়েছে।



LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here