অধ্যাপক মোজাফফর আহমদের ৯৯ তম জন্মদিন

0
264
oddodhapoker mujjafar jonmodin

১৯৭১ সালে মুক্তিযুদ্ধ চলাকালে গঠিত মুজিবনগর সরকারের অন্যতম উপদেস্টা, বাংলাদেশ ন্যাশনাল আওয়ামী পার্টি (ন্যাপ) সভাপতি, এদেশের বাম আন্দোলন এবং সাম্রাজ্যবাদ বিরোধী আন্দোলনের অন্যতম পুরোধা ব্যাক্তিত্ব প্রয়াত অধ্যাপক মোজাফফর আহমদ’র আজ ৯৯ তম জন্মদিন।

চলমান করোনা বিপর্যয়ের কারণে কোনো আনুষ্ঠিকতা ছাড়াই প্রয়াত হবার পর তাঁর প্রথম জন্মদিনটি উদযাপিত হলো অনাঢ়ম্বরে।

তিনি ১৯২২ সালের ১৪ এপ্রিল কুমিল্লা জেলার দেবীদ্বার উপজেলার এলাহাবাদ গ্রামের সম্ভ্রান্ত ভুইয়া পরিবারে জন্মগ্রহণ করেন।

অধ্যাপক মোজাফফর আহমদ হোসেনতলা স্কুল, জাফরগঞ্জ রাজ ইনস্টিটিউশন, দেবীদ্বার রেয়াজউদ্দিন পাইলট উচ্চবিদ্যালয় ও ভিক্টোরিয়া কলেজে লেখাপড়া শেষ করে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে অর্থনীতিতে অনার্সসহ এমএ ডিগ্রি পরে ইউনেস্কোর ডিপ্লোমা অর্জন করেন।

চাকুরী জীবনে তিনি বিভিন্ন সরকারি কলেজসহ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে অধ্যাপনা করেন তিনি।চল্লিশের দশকে ‘পাকিস্তান উন্মাদনার’ বিপরীতে যে মুষ্টিমেয় মুসলমান তরুণ ছাত্রাবস্থায় বামপন্থায় দীক্ষা নিয়েছিলেন, মোজাফফর আহমদ তাঁদের একজন।

নেতা হিসেবে মেনে নিয়েছিলেন ভারতীয় কমিউনিস্ট পার্টির অন্যতম প্রতিষ্ঠাতা সন্দ¦ীপের সন্তান কমরেড মোজাফফর আহমদকে।

১৯৫১-৫২ সালে যখন ভাষা আন্দোলন হয়, তখন মোজাফফর আহমদ ঢাকা কলেজের শিক্ষক। তাঁর আজমপুরের ৮/আই কলোনির বাসায়ই কমিউনিস্ট নেতারা নিয়মিত বৈঠক করতেন, যাঁদের মধ্যে ছিলেন নেপাল নাগ, খোকা রায়, অনিল মুখার্জি, সত্যেন সেন।

তিনি নিজেও ভাষা আন্দোলনে সক্রিয় ছিলেন। এরপর মোজাফফর আহমদ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে অর্থনীতি বিভাগে শিক্ষক হিসেবে যোগ দিলেও সেখানে বেশি দিন থাকা হয়নি।

১৯৫৪ সালে যুক্তফ্রন্টের প্রার্থী হিসেবে শিক্ষামন্ত্রী মফিজ উদ্দিন আহাম্মদের মতো শক্তিশালী প্রার্থীকে হারিয়ে পূর্ববঙ্গ ব্যবস্থাপক সভার সদস্য নির্বাচিত হন।

নিজেকে পরিচিত করে তুলেন কুঁড়েঘরের মোজাফফর হিসেবে। পূর্ববঙ্গ ব্যবস্থাপক সভার সদস্য হিসেবে মোজাফফর আহমদ স্বায়ত্তশাসনের পক্ষে জোরালো ভূমিকা রাখেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here